মৃতদেহ সৎকার ঘিরে তীব্র উত্তেজনা সৃষ্টি ধূপগুড়ি মহাশশ্বানে

মৃতদেহ সৎকার ঘিরে তীব্র উত্তেজনা সৃষ্টি ধূপগুড়ি মহাশশ্বানে।দীর্ঘক্ষণ বন্ধ থাকে বৈদ্যুতিক চুল্লি পরিষেবা।এতেই তীব্র উত্তেজনা দেখা দেয় শশ্বান চত্বরে।পরবর্তীতে ধূপগুড়ি থানার পুলিশ ও পুরসভার ভাইস চেয়ারম্যানের উপস্থিতি ফের সৎকারের কাজ শুরু হয়।জানা যায় সোমবার রাতে পথ দুর্ঘটনায় প্রাণ হারায় ধুপগুড়ি পুরসভা ১৬ নম্বর ওয়ার্ডের পাল পাড়ার যুবক গোপাল দাস।মঙ্গলবার বিকালে তার দেহ ময়নাতদন্তের পর বাড়িতে এসে পৌঁছালে বাড়ির সদস্যরা তার দেহ সৎকারের জন্য ধুপগুড়ি মহাশ্মশানে নিয়ে আসে।পরিবারের সদস্যদের অভিযোগ বৈদ্যুতিক চুল্লি দেখাশোনার দায়িত্বে থাকা ব্যক্তির অবহেলায় ছিল।দেহ সৎকারের কাজ শুরু হওয়ার পর কিছুক্ষণের মধ্যেই দেহ সৎকারের কাজ মাঝ পথে বন্ধ হয়ে যায়।দায়িত্ব থাকা ব্যক্তি ঠিকঠাক কাজ করতে না পারার জন্য মাঝে মধ্যেই এই সমস্যা সৃষ্টি হচ্ছে বলে দাবি। ঘটনায় মুহূর্তের মধ্যে শ্মশান চত্বরে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়।ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ধুপগুড়ি থানার পুলিশ পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।এরপরেই ঘটনাস্থলে আসেন ধুপগুড়ি পুরসভার চেয়ারম্যান রাজেশ কুমার সিং।তিনি এসে বন্ধ থাকা দেহ সৎকারের কাজ কে শুরু করান। এই বিষয়ে তিনি জানান সবার প্রথম মানুষের পরিষেবা দেওয়া প্রথম কাজ।দেহ সৎকারে কাজ শেষ হলে দায়িত্বে থাকা ব্যক্তির বিষয়ে কথা বলা হবে।যদি তার কোন দোষ প্রমাণিত হয় তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.