অসুস্থ এক শিশুকে অন্য এক রোগীর ইঞ্জেকশন দেওয়ার অভিযোগ উঠল ধূপগুড়ি গ্রামীন হাসপাতালে

অসুস্থ এক শিশুকে অন্য এক রোগীর ইঞ্জেকশন দেওয়ার অভিযোগ উঠল সরকারী হাসপাতালে।ধূপগুড়ি গ্রামীন হাসপাতালে রবিবার দুপুরের পর এই ঘটনায় চাঞ্চল্য দেখা দেয়।।চিকিৎসা করাতে আসা শিশুর পরিবারের অভিযোগ এদিন শিশুর অসুস্থতা দেখা দেওয়ায় তাকে ধূপগুড়ি গ্রামীন হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়।সেখানে চিকিৎসক শিশুকে দেখে প্রেসক্রিপশন করেন।এরপর কর্তব্যরত এক নার্স শিশুটিকে দুইটি ইঞ্জেকশন করতে গেলে পরিবারের লোকের সন্দেহ হয়।তারা তৎক্ষনাৎ বিষয়টি চিকিৎসককে জানালে চিকিৎসক বলেন এই শিশুকে কোনো ইঞ্জেকশন লেখাই হয়নি।এরই মাঝে ঐ দুটি ইঞ্জেকশন শিশুটি শরীরে দিয়ে দেওয়া হয় বলে অভিযোগ।মুহুর্তেই পরিবারের লোকজনের মধ্যে আতঙ্ক দানা বাধে।এইদিকে বিষয়টি প্রকাশ্যে আসতেই ঐ শিশুকে অবজারভেশনে রাখা হয়।প্রায় ঘন্টা চারেক অবজারভেশনে রাখার পর সন্ধ্যা ৬ টা নাগাদ তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়।শিশুর বাবার অভিযোগ করেন এদিন আমার শিশুকে নিয়ে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে নিয়ে আসলে চিকিৎসক দেখানোর পর হাসপাতালে কর্তব্যরত নার্স ভুল ইনজেকশন দেয়।যে প্রেসক্রিপশন জমা করি সেটার বদলে অন্য একজনের প্রেসক্রিপশনের ইঞ্জেকশন দিয়ে দেয়।আমরা জমা প্রেসক্রিপশন দেখতে চাইলে দেওয়া হয়নি।হাসপাতালের নার্সের গাফিলতির জন্যই এই ঘটনা ঘটেছে।
যদিও এই বিষয়ে ব্লক স্বাস্থ্য আধিকারিক ডাঃ সুরজিৎ ঘোষকে এই বিষয়ে ফোন করা হলে তিনি বলেন বিষয়টি জানা নেই, খোজ নিয়ে দেখছি এবং এবিষয়ে যা বলার মূখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক বলবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.